উৎসবের দেশ মানেই প্রিয় বাংলাদেশ। আর ঈদ উৎসব মানেই বাংলাদেশীদের সাজগোজ।

Mehndi-Design-Unique-1

 মুক্তধারা লাইফস্টাইল  ॥  উৎসবের দেশ মানেই প্রিয় বাংলাদেশ। আর ঈদ উৎসব মানেই বাংলাদেশীদের সাজগোজ। দেশের বাঙালি নারীরা যেমন উৎসব পালন করতে পছন্দ করেন ঠিক তেমনি  সাজতেও  পছন্দ করেন তাও অনেক বেশি । তাই পলেহা বইশাখ, পহেলা ফাল্গুন, বিয়ে, পুজা- পারবণ, ঈদ, ভালোবাসা দিবস সব উৎসবেই সাজগজের জন্য আদিকাল থেকেই চলে আসছে মেহেদির চল। বিশেষ করে বিয়েতে মেয়েরা হাত ভরতি মেহেদি লাগায়। কিন্তু মনের মত রঙ না হলে মেহেদি লাগানোর আনন্দই মাটি হয়ে যায়। তাই একটু নিয়ম পালন করলেই আমরা মেহেদি থেকে মনের মত রঙ পেতে পারি যা আমাদের হাতের সৌন্দর্য্যকে আরও বাড়িয়ে তোলে এবং উৎসবের আনন্দকে দিগুণ করে দেয়। আর সেই জন্য আপনাদের জন্য আমাদের তরফ থেকে পহেলা বৈশাখের অবিশ্বাস্য কিছু ডিজাইন যা এই বৈশাখে যেকোন মহিলাকে নজর কারতে বাধ্য।

মনে রাখবেনঃ

আপনি যদি হাতে ওয়াক্সিং করে থাকেন তাহলে সাথে সাথে ওইখানে মেহেদি লাগাবেন না। মেহেদি লাগানোর আগে দুই তিন দিন অপেক্ষা করুন। নয়ত আপনার ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।

মেহেদি লাগানোর আগে আপনার হাত ভালোভাবে ধুয়ে ফেলে ঠিকভাবে শুকিয়ে নিন। টিউব মেহেদি লাগানোর সবছে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে এটাকে শক্ত করে ধরা। তা না হলে ডিজাইন নস্ট হয়ে যেতে পারে। লাগানোর সময় হাতের সামনে অতিরিক্ত কাপড় বা টিস্যু রাখুন যাতে অতিরিক্ত মেহেদি লেগে গেলে খুব দ্রুত মুছে ফেলা যায়।

মেহেদি লাগানোর পরে কি করবেন? যখন মেহেদি একটু একটু করে শুকাতে শুরু করে তখন আপনি একটি পাত্রে সামান্য একটু লেবুর রস আর চিনি মিশিয়ে তুলার বল দিয়ে রস টা নিয়ে হাতে মিশ্রণটি লাগান।  এতে মেহেদীর রঙ আরও অনেক বেশি গাড় হয়।

সাধারণত রাতে ঘুমাতে যাওয়ার ২/৩ ঘণ্টা আগে মেহেদি লাগানো ভালো। সারা রাত হাতে মেহেদি রেখে দিলে এর রঙ ভালো হয়। মেহেদি শুকিয়ে গেলেও হাত ধুবেন না। অন্তত ৮ ঘণ্টা পানি থেকে হাত দূরে রাখুন। যত দেরীতে পানি লাগাবেন হাতে তত বেশি রঙ গাঢ় হবে।

Check Also

দৈনন্দিন জীবনের ১০টি প্রয়োজনীয় টিপস

১) ভাত রান্না করতে গিয়ে ভাতগুলো ঝরঝরে হচ্ছে না? কোন চিন্তা নেই চাল ধোয়ার পর …

Powered by themekiller.com