‘বাবা’র ছড়াছড়ি যে শহরে

কক্সবাজার শহরের পূর্ব রাখাইনপাড়া। গত শনিবার দুপুরে সেখানে রাস্তার পাশের একটি গলির মুখে আধা ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকার পর মধ্যবয়সী এক নারী পাশে এসে দাঁড়ান। ক্ষীণ স্বরে বলেন, ‘বাবা’ লাগবে? সবুজ গোলাপি লাল সব আছে। ১০০ টাকা লাগবে। নিলে জলদি করতে হবে, বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে পারবেন না জানিয়ে দেন ওই নারী। সাংবাদিক পরিচয় দেওয়ার পর তিনি বলেন, এখানে দাঁড়িয়ে কাজ কী, সব জায়গায় তো ‘বাবা’র ছড়াছড়ি।
ঝামেলা এড়াতে মাদক ব্যবসায়ীরা ইয়াবা বড়িকে এখন কক্সবাজার শহরে বাবা নামে বিক্রি করেন। শহরের অন্তত ২২টি স্থানে প্রকাশ্যেই বিক্রি হচ্ছে ইয়াবা ও পুরিয়া (হেরোইনের সঙ্গে নেশা-জাতীয় বড়ি মিশিয়ে তৈরি করা হয়)। এই প্রতিবেদক শনিবার বেলা সোয়া দুইটা থেকে বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত মাদকের জন্য পরিচিত শহরের তিনটি এলাকায় সোয়া তিন ঘণ্টা অবস্থান করেন।
পূর্ব রাখাইনপাড়ায় মাদক কেনার প্রস্তাব পাওয়ার পর সেখান থেকে ৩০০ গজ দূরে বাজারঘাটার পৌরসভা মার্কেট-সংলগ্ন রাখাইনপাড়ায় যান এই প্রতিবেদক। রাস্তায় ২০ মিনিট দাঁড়িয়ে থাকার পর এক ব্যক্তি পাশে দাঁড়িয়ে জানতে চান কারও জন্য অপেক্ষা করছি কি না। তিনি বলেন, স্থানীয় দুজন মাদক ব্যবসায়ী আপনার (প্রতিবেদক) পরিচয় জানেন। কেউ মাদক কেনার জন্য প্রস্তাব নিয়ে আসবে না। তিনি বলেন, এই গলিতে সব সময় ইয়াবা বিক্রি চলে। এখানে রাস্তার পাশের কয়েকটি টং দোকানে (চায়ের দোকান) গাঁজা-হেরোইনও বিক্রি হয়। ইয়াবায় আসক্ত ওই তরুণদের অনেকে শহরের অলিগলিতে চুরি-ছিনতাইয়েও জড়িত।

Check Also

অনলাইন প্রফেশনাল’স মিটআপে ২শ’ অনলাইন পেশাজীবীদের মিলনমেলা

শনিবার, ১লা সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে সকাল ৯টা থেকে দুপর ২টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে বগুড়া পৌর …

Powered by themekiller.com