বিতর্কের জন্ম দিচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের (ঢাবি) সঙ্গে জড়িয়ে আছে বাংলাদেশের ইতিহাস। দেশের প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে এই বিশ^বিদ্যালয়; কিন্তু সম্প্রতি প্রশ্নফাঁস, সাংবাদিক নির্যাতন, শিক্ষকদের মধ্যে হাতাহাতি, গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মসহ বিভিন্ন অনাকাক্সিক্ষত ঘটনায় বিতর্কের জন্ম দিয়েছে গৌরবের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
সংশ্লিষ্টরা জানান, দেশের প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থা যদি এ রকম হতাশাজনক হয়, তাহলে অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবস্থা কী হবে; তা বোঝাই যাচ্ছে। এমন অবস্থা চলতে থাকলে ভবিষ্যতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরব আরও তলানিতে যাবে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্নফাঁসের মধ্য দিয়ে প্রশ্নফাঁসের বিষয়টি নজরে আসে। গত ২০ অক্টোবর ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগের দিন রাতেই প্রশ্নের ইংরেজি অংশটি ফাঁস হওয়ার খবর আসে গণমাধ্যমে। প্রাথমিক অনুসন্ধানে সিআইডি জানায়, ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে প্রশ্ন ফাঁস করা হয়েছে। পরীক্ষার আগের রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন রানা ও আব্দুল্লাহ আল মামুনকে আটক করা হয়।
প্রশ্নফাঁসে জড়িত সন্দেহে প্রেস কর্মচারী, নাটোরের ক্রীড়া কর্মকর্তা ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রসহ ১০ জনকে গত ১৩ ডিসেম্বর বুধবার রাতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে আটক করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। ঢাকার ইন্দিরা রোডের একটি প্রেসের এক কর্মচারীর মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে আসছিল। এই চক্রকে চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি। গ্রেপ্তারকৃতদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ২০১৫ ও ২০১৬ সালেও ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। আর চলতি বছর এই পরীক্ষায় ডিজিটাল জালিয়াতি হয়েছে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে সবচেয়ে বেশি সমালোচনা হয়েছে শিক্ষকদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনায়। গত ২ নভেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামী লীগ সমর্থিত নীল দলের সাধারণ সভায় শিক্ষকদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনায় দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় ওঠে। ওই ঘটনায় সিনেট সদস্য ও নীল দলের সদস্য অধ্যাপক ড. আ ক ম জামাল উদ্দিন আহত হয়েছিলেন। বিষয়টি নীল দলের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান। ঘটনার পর বিচারের দাবিতে অপরাজেয় বাংলার সামনে উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন করে।
বিশিষ্টজনরা বলেন, দলীয় স্বার্থসিদ্ধির জন্যই শিক্ষকরা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। ইতিহাসে এটি একটি লজ্জাকর ঘটনা। ছাত্রদের সামনেই শিক্ষকরা যে ঘটনা ঘটালেন তা শিক্ষকদের আত্মসম্মানবোধের জন্য খুবই শঙ্কাজনক।

Check Also

কুয়েট পিকনিক বাসে ২ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৪

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) শিক্ষা সফরের দুটি বাসে তল্লাশি চালিয়ে প্রায় ২ হাজার …

Powered by themekiller.com