যা বললেন অনন্য মামুন

গতকাল শুক্রবার রাতে দেশে ফিরেছেন নির্মাতা অনন্য মামুন। প্রায় দুই সপ্তাহ মালয়েশিয়া পুলিশের কাস্টডিতে ছিলেন তিনি। এই দুই সপ্তাহে নানা চড়াই উতরাইয়ের মুখোমুখি হয়েছেন মামুন। এ সব বিষয়ে দেশে ফিরে বিস্তারিত কথা বলেছেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে। মামুনের দেওয়া পুরো বক্তব্যটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো:

মালয়েশিয়ায় গত আট থেকে ১০ বছর যাবৎ প্রফেশনালি টিকিট সেল কোনো শো’তেই হয়নি। এ সময়ে যে সব শো হয়েছে বিভিন্ন সংগঠনের অল্প সব ফ্রি শো। লাস্ট একটা শো হয়েছিল, সেই শোতে মমতাজ আপা গিয়েছিলেন। আর সেই শোতে মারামারি হয় এবং শো বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তী মামলা মোকাদ্দমা হয়। এরপর থেকে কমার্শিয়াল কোনো শো হয়নি। আমারও মালয়েশিয়াতে কোনো শো করার পরিকল্পানা ছিল না। আমারই এক বন্ধু রয়েছে সম্পদ। ও যাওয়ার পর বললো, ওমানে আপনি একটা সাকসেসফুল শো করছেন, মালয়েশিয়ায় একটা করেন ভালো লাগবে। আমি বললাম ওকে, আমার করতে সমস্যা নেই। আমি মালয়েশিয়াতে গেলাম, তারপর শো গুটিয়ে নিয়ে আসলাম।

‘ক্যাম টু দ্য পয়েন্ট’ -আমি যেটা নিয়ে বেশি কষ্ট পেয়েছি, সেটা হলো কত বড় গেমিং ছিল। আমি অনন্য মামুন। আমার সাথে একটা কোম্পানি স্পন্সর ছিল। আমার সাথে একটি বেসরকারি টিভি ছিলও। তারা আমাদের মিডিয়া পার্টনার ছিল। তার মানে কি সেই টিভি ওই কাজের সাথে জড়িত। একটি স্পনসর কোম্পানির দায়িত্ব কি? লাইভ টেকনোলজির সাথে একটা কোম্পানি টাইটেল স্পন্সর করছে। টাইটেল স্পন্সরের কারণে তারা আমাকে একটা টাকা দিয়ে হেল্প করেছে। এবং তারা এই শো-এর সাথে জড়িয়েছে। এর বাইরে কিছুই না।

কিন্তু যেটা হলো সেটা, আমি যখন শো করতে গেলাম তখন সবাই আমাকে বাধা দেওয়া চেষ্টা করলো। এরপর শো-এর তিন দিন আগে অচেনা নম্বর থেকে একটা ফোন আসে এবং বলে, মামুন ভাই মালয়েশিয়াতে শো করতে গেলে ৫০ হাজার রিংগিত দিতে হবে। তখন বললাম, আমি আপনাকে চিনিও জানিও না। শো করতে এসেছি, কেন টাকা দিতে হবে? তখন ওই প্রান্তে থেকে লোকটি বলল, আচ্ছা ভাই আমি দেখব, আপনি কীভাবে শো করেন।

Check Also

ভোল পাল্টালেন শাকিব খান!

ডিজিটালের ছোঁয়া ঢাকাই সিনেমায় লাগার পর অনেকেই আশার বীজ বুনতে শুরু করেছেন। কিন্তু অচমকাই আশনি …

Powered by themekiller.com