ধরা পড়ল ৯১ কেজি ওজনের মাছ

সেন্ট মার্টিনের দক্ষিণ-পশ্চিমে ‘পাথরের বান’ নামক সাগরে সাড়ে পাঁচ ফুট ও ৯১ কেজি ওজনের একটি ভোল মাছ ধরা পড়েছে। উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপের শনিবার ভোরে মিস্ত্রিপাড়ার বাসিন্দা হাফেজ আহমদের মালিকানাধীন ট্রলারের বড়শিতে এই মাছটি ধরা পড়ে। পরে বেলা ১টার দিকে মাছটি নিয়ে ট্রলারটি সেন্ট মার্টিন জেটি ঘাটে এসে পৌঁছালে উৎসুক জনতা মাছটি দেখতে ভিড় জমায়।

পরে নৌকা থেকে নামিয়ে জেলেরা রশি বেঁধে পানিতে ভাসিয়ে টেনে টেনে সেন্ট মাটিন জেটিতে নিয়ে আসে। জেলেদের কাছ থেকে ৬৮ হাজার টাকায় স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী আবদুল আজিজ মাছটি কিনে নেয়।

ট্রলারের মালিক হাফেজ আহম্মদ বলেন, শুক্রবার বিকেলে আটজন জেলে নিয়ে ট্রলারটি সেন্ট মার্টিন দ্বীপের দক্ষিণ-পশ্চিমে পাথরের বান নামক সাগরে জাল ও বরশি ফেলে। সকালে বরশি তুলে তারা দেখতে পান বড় একটি ভোল মাছ বড়শিতে আটকা পড়েছে। পরে সেন্ট মাটিন জেটিতে তুলে মাছটি ৬৭ হাজার টাকায় বিক্রি করি।

মাছ ব্যবসায়ী আবদুল আজিজ বলেন, সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে আসা দেশি-বিদেশি পযর্টকদের খাওয়ানো উদ্দেশ্যে ৯১ কেজির ওজনের একটি ভোল মাছ কিনেছি। বড় মাছ আটকাপড়েছে খবর শুনে পযর্টকরা অনেকে এসে মাছের সঙ্গে সেলফি তুলছেন।

তিনি আরো বলেন, সেন্টমার্টিনে এখন প্রচুর পযর্টক বেড়াতে আসছেন। মাছটি ক্রয় করে দ্বীপের হোটেলগুলোতে বিক্রয় করবেন। রোববার সকালে মাছটি কেটে প্রতি কেজি ৮৫০ টাকা করে বিক্রি করা হবে। এরই মধ্যে বিভিন্ন হোটেলের মালিক ও স্থানীয়রা ৬৭ কেজি মাছ আগাম কিনে নিয়েছেন।

টেকনাফ উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, এ মাছ সাধারনত গভীর সাগরেই পাওয়া যায়। এই মৌসুমে জেলেদের বড়শিতে বড় বড় মাছ আটকা পড়ে। সম্ভবত মাছটি পথ হারিয়ে চলে আসায় জেলের বড়শিতে ধরা পড়েছে।

Check Also

অবিরাম ভারি বর্ষনে জলাবদ্ধতায় শহরবাসীর ভোগান্তি

বৃষ্টিতে চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগে পড়েছেন শহরবাসী। ভারী ও মাঝারি বৃষ্টিপাতে শহরে এ …

Powered by themekiller.com