মানসিক চাপ দূর করে যে খাবার

অফিসের কাজ হোক বা বাড়ির পারিবারিক ঝামেলা, সব জায়গাতেই এখন বাড়ছে মানসিক চাপ ও উদ্বেগ। সে কারণে বেড়ে চলেছে শারীরিক ও মানসিক সমস্যাও। ভয়কে জয় করতে না পারার কারণেই স্ট্রেস বা মানসিক চাপ দেখা দেয়। নির্দিষ্ট সময়ে অফিসের কাজ শেষ করতে না পারা, স্কুল-কলেজ-ইউনিভার্সিটির পরীক্ষার সময়, পরিবেশ দূষণ এলাকায় বা ট্রাফিক জ্যামসহ নানা কারণেই আমরা মানসিক চাপ বা স্ট্রেসে ভুগি। এই স্ট্রেস থেকে মুক্তি পেতে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া খুব জরুরি। পটাসিয়াম, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড, জিংক, বি ভিটামিন, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন সি ও অ্যামাইনো এসিড সমৃদ্ধ খাবার খেলে মানসিক চাপ ও উদ্বেগ কমে। এমন কিছু খাবারের কথাই জানি চলুন-

রসুন: স্বাস্থ্যের জন্য ও রোগ প্রতিরোধে রসুনকে সুপার ফুড হিসেবে বিবেচনা করা হয়। অ্যালিসিন নামের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে রসুনে, এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে মানসিক চাপ কমায়, হার্ট ও রক্তনালি উন্নত রাখে।

হলুদ: কারকিউমিন নামের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে হলুদের মূলে, এটি মস্তিষ্ক সুস্থ রাখে ও উদ্বেগ কমায়।
পালং শাক: সবুজ শাকের মধ্যে পালং শাক খুব উপকারি। এতে ফলিক এসিড, ভিটামিন কে ও ভিটামিন এ থাকে। এছাড়া ম্যাগনেশিয়ামও প্রচুর আছে এতে, যা শরীরে কোরটিসোল হরমোনের মাত্রা ঠিক রেখে শরীরে ফুরফুরে ভাব বজায় রাখে।

স্যামন মাছ: মিনারেল, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ স্যামন মাছ মানসিক চাপ কমাতে খুব ভালো ভূমিকা রাখে। ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড মানসিক চাপের জন্য দায়ী হরমোন অ্যাড্রিনালিন ও করটিসোল নিয়ন্ত্রণ করে।

গ্রিন টি: খুব শক্তিশালী অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ক্যাটেকিন থাকে গ্রিন টি তে, যা মানসিক চাপ কমিয়ে শরীর ও মনকে রিলাক্স করে। এছাড়া গ্রিন টিতে থাকা এল- থিয়ানিন অ্যামাইনো এসিড সেরোটোনিন ও ডোপেমিন কমিয়ে মস্তিষ্ককে শীতল ও নির্ভার রাখে।

চকোলেট: মানসিক চাপ ও উদ্বেগ কমিয়ে শরীর ও মনে ফুরফুরে ভাব আনতে বেশ কার্যকর চকোলেট। নিয়মিত ডার্ক চকোলেট খেলে আপনি মানসিক চাপ মুক্ত থাকবেন।

বাদাম: প্রচুর প্রোটিন, ভিটামিন বি টু, ই থাকে বাদামে। নিয়মিত বাদাম খেলে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যেমন বাড়বে, তেমনি মানসিক চাপও কমবে।

এছাড়া, ব্লু বেরি, অ্যাভাকেডোর মতো ফল ও পুষ্টি সমৃদ্ধ সবজি অ্যাসপারাগাসও আপনার মানসিক চাপ দূর করবে।

Check Also

রমজানে ডায়বেটিস রোগীদের জন্য খাদ্যের পরামর্শ

\ আহ্লুল জান্নাত \ ডায়াবেটিস ইনসুলিনের সমস্যা জনিত রোগ। কারো রক্তে গøুকোজ সুনির্দিষ্ট মাত্রা অতিক্রম …

Powered by themekiller.com