থিসারা আমাকে গালি দিয়েছিল

১৬ মার্চ রাতে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ম্যাচের শেষ মুহূর্তে সেকি উত্তেজনা! তখন পুরো ম্যাচের ৪০তম ওভারের (শেষ ওভার) খেলা চলছে। লঙ্কান পেসার ইসুরু উদানার করা ওই ওভারের প্রথম দুই বলে ঘটে যাওয়া ঘটনা আর বাজে আম্পায়ারিংয়ের প্রতিবাদে ক্রিজে থাকা ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ ও রুবেল হোসেনকে মাঠ ছেড়ে উঠে আসতে বলছিলেন টাইগার ক্যাপ্টেন সাকিব।

তাও ড্রেসিং রুমে বসে কিংবা দাঁড়িয়ে নয়। ড্রেসিং রুম থেকে দৌড়ে একদম সীমানার কাছে এসে দু’হাত নেড়ে ব্যাটসম্যানদের লক্ষ্য করে সাকিবের আহŸান, রিয়াদ ভাই চলে আসেন। আমরা খেলবো না আর। খেলে লাভ কি?

আম্পায়াররা নিশ্চিত ‘নো’ বল দেয় না। উদানার পর পর দুই বল ব্যাটসম্যানের মাথার ওপর দিয়ে চলে গেল। অথচ আম্পায়ার নো ডাকলো না। দ্বিতীয় বল লেগ আম্পায়ার নো ডাকার পরও মূল আম্পায়ার তা আমলে নিলেন না। এমন অবস্থায় খেলে কি হবে?

মাঠের পাশে টেন্টে বসে থাকা লঙ্কান রিজার্ভ আম্পায়ার বারবার সাকিবকে থামানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হলেন। সাকিবের তখন একদমই অন্যরকম অবস্থা। চোখে মুখে আম্পায়ারদের প্রতি রাজ্যের ক্ষোভ। একটি হলে কথা ছিল, পরপর দুই বল চলে গেল ব্যাটসম্যান মোস্তাফিজের মাথার ওপর দিয়ে, ক্রিকেটের বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে কাঁধের ওপর দিয়ে একটি বল চলে গেলেই আম্পায়ার আঙ্গুল তুলে বোলার ও স্কোরারকে জানিয়ে দেন, একটি ডেলিভারি কিন্তু কাঁধের ওপর দিয়ে চলে গেছে। তার মানে আরেকটা গেলেই নো ডাকবো।

Check Also

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ বাতিল করল অস্ট্রেলিয়া!

মাস কয়েক আগেই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) জানিয়েছিল ভবিষ্যত সূচি অনুযায়ী তাদের মাটিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ …

Powered by themekiller.com